এবার রাজ্যেও মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক, জারি হল সরকারি নির্দেশিকা

রাজ্যের করোনা হটস্পট এলাকা চিহ্নিত করে বিশেষ নজরদারি শুরু হয়েছে | এবার অন্যান্য রাজ্যের মতোই করোনা-সংক্রমণ রুখতে মাস্ক বা মুখাবরণ ব্যবহার বাধ্যতামূলক করল রাজ্য সরকার। এই মর্মে রবিবার মুখ্যসচিব রাজীব সিংহ একটি নির্দেশিকা জারি করেন। সেই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, মানুষজন ঘরের বাইরে বেরলেই যে কোনও ধরনের মুখাবরণ থাকা আবশ্যক। সেই মুখাবরণ যে মাস্ক হতে হবে এমন নয়, রুমাল, গামছা বা দোপাট্টা হলেও চলবে। নাকমুখ যাতে ঢাকা থাকে সেইরকম যেকোনো মুখবরণ |পাশাপাশি জানানো হয়েছে এই নির্দেশ অমান্য করলে তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করা হবে।

এ দিনের নির্দেশিকায় মুখ্যসচিব জানিয়েছেন, মুখাবরণ ব্যবহার করলে কোভিড-১৯-এর সংক্রমণের গতি অনেকটাই রোধ করা যায়। এবং সেই কারণেই সকলের মুখাবরণ ব্যবহার করা বাঞ্ছনীয়।

স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, কয়েক সপ্তাহ ধরেই মুখাবরণ ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা যায় কিনা, তা নিয়ে আলোচনা চলছিল সরকারের অন্দরে। ইতিমধ্যেই দিল্লি, মুম্বই, আমদাবাদের মতো শহর ও উত্তরপ্রদেশ এবং ওড়িশার মতো ভারতের কয়েকটি রাজ্যে মুখাবরণ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। চিকিৎসকদের একাংশের দাবি, যেহেতু ড্রপলেট থেকেই এই রোগ ছড়ায়, সেহেতু প্রকাশ্যে মুখাবরণের ব্যবহার সংক্রমণ রুখতে কার্যকরী পদক্ষেপ। ওই চিকিৎকদেরই একটি অংশ ইঙ্গিত দিয়েছেন, যখন কোভিড-১৯-এর সংক্রমণ তৃতীয় পর্যায়ের দোরগোড়ায় পৌঁছয়, অর্থাৎ গোষ্ঠী সংক্রমণের সম্ভাবনা তৈরি হয়, সে ক্ষেত্রে মুখাবরণের ব্যবহার বাধ্যতামূলক হওয়া উচিত। যদিও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে গোষ্ঠী সংক্রমণের সম্ভাবনার কথা এখনো স্বীকার করা হয়নি, তবে সরকারের এই পদক্ষেপ তৃতীয় পর্যায়ের সংক্রমণের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি হিসাবেই দেখছেন চিকিৎসকরা।

Leave a Comment