খোঁজ মিললো আরো বেশি ছোঁয়াচে করোনার নতুন প্রজাতির, হুঁশিয়ারি মালেশিয়ার

করোনা আক্রমণে জর্জরিত গোটা বিশ্ব। মৃতের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান এবং সংক্রমিত সংখ্যাও কমছে না কোনোভাবেই, এর মধ্যে ভ্যাকসিনের খবর গুলি কিছুটা হলেও স্বস্তির আশ্বাস দেয়। তবে আরও একটি বাজে খবর নিয়ে করোনার ভ্যাকসিনের কার্যকারিতার উপর প্রশ্ন তুললেন মালয়েশিয়ার বেশকিছু বিশেষজ্ঞ।

সম্প্রতি মালয়েশিয়া গভমেন্টের দাবি অনুযায়ী সে দেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রক করোনাভাইরাস এর একটি নতুন স্ট্রেন বা প্রজাতির সন্ধান পেয়েছে যেটি কিনা আক্ষরিক অর্থে সুপার স্প্রেডার। মালয়েশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের ডিরেক্টর জেনারেল নূর হাশেম আব্দুল্লাহ গত শনিবার তার ফেসবুক পোস্টে লেখেন ” সদ্য খোঁজ মেলা এই নতুন স্ট্রেনটি (ডি৬১৪জি) ১০ গুন বেশি ছোঁয়াচে “।

মালয়েশিয়া ছাড়াও ইউরোপ এবং আমেরিকাতেও এই নতুন প্রজাতির করোনা ভাইরাসটির সন্ধান পাওয়া গেছে। অনেক বিশেষজ্ঞরা দাবি করেছেন যে এর ফলে হয়তো এতদিন করোনাভাইরাস নিয়ে হওয়া সমস্ত গবেষণার ওপর জল ঢেলে দেওয়া হল, কারণ সুপার স্প্রেডার এই নতুন প্রজাতির টি একেবারেই আলাদা এবং যতগুলো করোনার ভ্যাকসিনের এখনো অব্দি পরীক্ষামুলকভাবে হিউম্যান ট্রায়াল চলছে সেগুলোর একটিও হয়তো এটিকে রুখতে পারবে না। সম্প্রতি একটি বিবৃতিতে হাশিম আব্দুল্লাহ এমনই একটি সন্দেহ করেছেন, তিনি বলেছেন ” সম্ভাবনাময় প্রতিটি করোনা ভ্যাকসিনই এটির বিরুদ্ধে কার্যকর নাও হতে পারে”। তবে এটি নিয়ে ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন আতঙ্কগ্রস্থ না হওয়ার জন্য বলেছে, তাদের মত অনুযায়ী এই প্রজাতির সংক্রমণ নিয়ে এখনো পর্যন্ত কোন প্রমাণ মেলেনি।

তবে মালয়েশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রক দাবি করেছে যে এখনো পর্যন্ত দুটি ক্লাস্টারে এই নতুন ‘ডি৬১৪জি’ করোনা ভাইরাসটির সংক্রমনের তিনটি ঘটনা পাওয়া গিয়েছে যার মধ্যে সম্প্রতি ভারত থেকে ফিরে আসা মালয়েশিয়ার এক রেস্তোরাঁর মালিকও রয়েছেন এবং বাকি দুজন ফিলিপিনস ফেরত।

এদিকে করোনা আক্রমণে আবার সংকটে জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়া, প্রথমদিকে যথেষ্ট পরিমাণে সামলে নিলেও বিগত কয়েক দিন ধরে জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়ায় দৈনিক হাজারেরও বেশি নাগরিক সংক্রমিত হয়েছেন। দক্ষিণ কোরিয়ার একটি চার্চ থেকেই সংক্রমিত হয়েছেন ৩০০ জন। তবে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যায় সবার থেকে এগিয়ে আমেরিকা। আমেরিকায় মোট মৃতের সংখ্যা এর মধ্যেই ১ লক্ষ ৭০ হাজার ছাড়িয়েছে, মোট আক্রান্ত ৫৫ লক্ষেরও বেশি।

Leave a Comment