মহাকাশের ধ্বংসাবশেষের দিকে নজর রাখতে ইসরো বসাচ্ছে অপটিক্যাল টেলিস্কোপ

মহাকাশের সম্ভাব্য বিপদ গুলোর উপর নজর রাখতে এতদিনে বিদেশের প্রযুক্তি ছিল ভরসা, তবে এবার দেশের উদ্যোগে এরকমই একটি অপটিক্যাল টেলিস্কোপ বসাতে চলেছে ইসরো যেটির দ্বারা মহাকাশ থেকে ধেয়ে আসা গ্রহাণু থেকে শুরু করে বিভিন্ন উপগ্রহের ধ্বংসাবশেষের ওপরও নজর রাখা যাবে।

মহাকাশ থেকে ধেয়ে আসা সম্ভাব্য বিপদের মধ্যে শুধুমাত্র গ্রহাণুই থাকেনা, এর মধ্যে বিভিন্ন স্যাটেলাইট যেগুলি কোন কারণে ধ্বংস হয়ে গেছে কিংবা যেসব স্যাটেলাইট এখন আর ব্যবহার হয় না সেগুলিও রয়েছে। বলাই বাহুল্য গ্রহাণু কিংবা astroid এর থেকে যেরকম পৃথিবীর বিপদ হতে পারে ঠিক সেরকমই কোনো astroid যদি কোনো সক্রিয় স্যাটেলাইটে গিয়ে ধাক্কা খায় তবে বিকল হতে পারে ইন্টারনেট, টেলিভিশন এবং অন্যান্য যোগাযোগ ব্যবস্থা। মহাকাশে ঠিক যেভাবে ভারতের অভিযান বাড়ছে তাতে এই ধরণের প্রকল্প মহাকাশ ঘটিত যেকোনো বিপদের হাত থেকে ভারতের স্যাটেলাইটগুলিকে বাঁচাতে সক্ষম হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

নৈনিতালের অদূরে দেবস্থলে এরকম একটি অপটিক্যাল টেলিস্কোপ বসানোর কাজ এ বছর থেকেই শুরু করা হবে, সম্প্রতি নৈনিতালের আর্যভট্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউট অফ অবজারভেশন সাইন্স (এরিস)এর সঙ্গে একটি সমঝোতা পত্র স্বাক্ষরিত করেছে ইসরো। এই প্রথম ভারত থেকে এই ধরনের পদার্থের উপর নজর রাখা শুরু করবে ইসরো এবং তার জন্য চালু করা হয়েছে একটি বিশেষ বিভাগ যার নাম নেত্র।

এরিস -এর অধিকর্তা সৌরপদার্থবিজ্ঞানী দীপঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায় জানান ” এ বছর থেকেই শুরু হবে অপটিক্যাল টেলিস্কোপ বসানোর কাজ এবং টেলিস্কোপ লেন্সের ব্যস হবে ৫০ সেন্টিমিটার, এরকম আরো একটি অপটিক্যাল টেলিস্কোপ বসানো হবে হানলে-তে, যার ব্যাস প্রায় ১ মিটার হওয়ার কথা, এটি ইসরো বসাবে বেঙ্গালুরুর ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ এস্ট্রোফিজিক্স এর সহযোগিতায়”।

Leave a Comment