করোনা ভ্যাকসিন প্রথম পাবেন স্বাস্থ্যকর্মীরাই, তৈরী হচ্ছে রাজ্যের সকল স্বাস্থ্যকমীদের নামের তালিকা

করোনা ভ্যাকসিন প্রথম পাবেন স্বাস্থ্যকর্মীরাই, তৈরী হচ্ছে রাজ্যের স্বাস্থ্যকমীদের নামের তালিকা

নিজস্ব প্রতিবেদন, শুরু থেকেই কোভিড-যুদ্ধে সামনের সারিতে লড়ে যাচ্ছেন চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীরা। ভবিষ্যতেও আরও করোনা রোগীর মুখোমুখি হতে হবে তাঁদের। তাই দুর্গাপূজার পরেই জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের (ন্যাশনাল হেলথ মিশন) আওতায় কলকাতা, শিলিগুড়ি-সহ সাতটি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন এবং বাকি সব পুরসভা-সহ সব সরকারি মেডিক্যাল কলেজ এবং বেসরকারি কোভিড হাসপাতালগুলির চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের তালিকা চেয়ে পাঠাল স্বাস্থ্য মন্ত্রক। সেই সম্ভাব্য ভ্যাকসিন প্রাপকদের তালিকা জেলায় জেলায় চেয়ে পাঠাল স্বাস্থ্য দফতর। সেই তালিকাই পাঠানো হবে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের কাছে। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যে স্বাস্থ্যভবন থেকে নির্দেশিকা পৌঁছেছে জেলায় জেলায়। স্বাস্থ্যকর্মীদের নামের তালিকা তৈরি করতে বলা হয়েছে। স্বাস্থ্যকর্মীদের নামের তালিকা চেয়ে সরকারি, বেসরকারি হাসপাতাল, নার্সিংহোম, ডায়গনস্টিক সেন্টারে চিঠি পাঠানো শুরু করেছেন মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকরা।

ভারত এবং অন্যান্য দেশেও করোনা ভ্যাকসিন আগে কাদের দেহে প্রয়োগ করা হবে সে বিষয়ে এখনও বিশদে কিছু জানান হয়নি। তবে মনে করা হচ্ছে যারা কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের নিয়ে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন, তাঁরাই আগে পাবে এক ভ্যাকসিন। তবে এখনও কিন্তু সোজাসুজি কিছু জানান হয়নি এ বিষয়ে। কিন্তু আদতে বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অনেক দেশেই এই দিকটি মাথায় রেখে বিশেষজ্ঞ দলও গঠন করে ফেলা হয়েছে। কারণ প্রথম পর্যায়ে যে ভ্যাকসিন আসবে সেটি সংখ্যায় কম। জনসাধারণের জন্য উপলব্ধ হবে না প্রাথমিকভাবে। তাই অগ্রাধিকার কারা পাবেন সেটা অবশ্যই ভেবে দেখা উচিত বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের।

দেশে করোনা ভ্যাকসিন কবে আসবে, তা নিয়ে রয়েছে নানান বিতর্ক। কেন্দ্র জানিয়েছে সামনের বছরের শুরুতেই ভ্যাকসিন আসছে। একাধিক সংস্থার ভ্যাকসিন দেশে আসবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন। এই ভ্যাকসিন গুলোর গুরুত্ব বুঝেই প্রয়োগ করা হবে। কাদের আগে দেওয়া হবে তা নিয়ে গাইডলাইন তৈরী করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সঙ্গে যারা যারা রয়েছেন তাঁদের নামের তালিকা তৈরি করতে বলা হয়েছে। দ্রুত তালিকা পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। করোনা ভ্যাকসিনের বণ্টনে অগ্রাধিকার পাবেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। ইতিমধ্যে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

Leave a Comment