করোনা সংক্রমনের ঝড় আমেরিকায়

ঠিক যেমনটা সন্দেহ করেছিল ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন তেমনভাবেই ভয়ানক সংক্রমণের শিকার হল আমেরিকা। গত শুক্রবার এবং শনিবার যথাক্রমে ৮৪২০০ এবং ৭৯৮০০ জন করোনা সংক্রমিত হয়েছেন।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে দিয়ে এমনটা যে ঘটতে পারে সেই সম্পর্কে বিশেষজ্ঞরা আগেই সাবধান করেছিলেন। ভোটের ফলে যে এর বহিঃপ্রকাশ হবে তা আর সন্দেহ রাখেনা। ভোট প্রচারের জন্য প্রচুর পরিমাণে জমায়েত করা হয়েছে আর তার ফলেই করোনা সংক্রমণে এত বড়সড় বৃদ্ধি বলে মনে করা হচ্ছে। ওহায়ও, মিশিগান, নর্থ ক্যারোলিনা, উইসকনসিন এবং পেনসিলভেনিয়া তে সংক্রমণের মাত্রা সবথেকে বেশি। সেখানকার হসপিটাল এবং ইমারজেন্সিতে উপচে পড়া ভিড়। করোনা কিছুটা সামলে নেওয়ার পর আমেরিকা যে আবার একই অবস্থায় ফিরে আসবে সেই আশঙ্কা অনেকেই করেছিলেন, আর প্রত্যেকদিন মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে সেই আশঙ্কাই সত্যি প্রমাণিত হচ্ছে।

আমেরিকার ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স এর চিফ অফ স্টাফ করোনা সংক্রমিত, কিন্তু তা সত্বেও ভোট প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন মাইক। সরকারি নিয়ম ব্যবস্থায় যেখানে তার ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা সেখানে তিনি নিজেই এই আইনকে বুড়ো আঙ্গুল দেখাচ্ছেন। সম্প্রতি তিনি মিনেসোটা এবং নর্থ ক্যারোলিনা তে ভোট প্রচার করেছেন।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন নিয়ম না মানার ফলে ভোট প্রচার অনুষ্ঠান গুলি হয়ে উঠছে একেকটি করোনা হটস্পট এবং সেখান থেকেই ভয়ানক ভাবে ছড়িয়ে পড়ছে করোনা সংক্রমণ। পরিস্থিতি এরকম চলতে থাকলে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ আমেরিকার ক্ষেত্রে সংক্রমনের প্রথমার্ধ থেকে আরো ভয়ানক হবে।

Leave a Comment