'পথশ্রী অভিযান’‌ প্রকল্পের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

‘পথশ্রী অভিযান’‌ প্রকল্পের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

‘পথশ্রী অভিযান’‌ প্রকল্পের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিবেদন, পুজোর আগে রাস্তা হতে হবে মসৃণ। বড় রাস্তা রক্ষণাবেক্ষণের জন্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রথমে লকডাউন, তারপরে বর্ষায় রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের রাস্তার হাল বেহাল হয়ে পড়েছে। রক্ষণাবেক্ষণের কাজে অনেক দেরি হয়ে গেছে। সেই কাজে যাতে আর ঢিলেমি না হয়, সেদিকে নজর রাখতে হবে বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।বৃহস্পতিবার জলপাইগুড়ির ফুলবাড়ি থেকে রাজ্যের পঞ্চায়েত দফতরের ‘‌পথশ্রী অভিযান’‌ প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই প্রকল্পের আওতায় রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় মোট ১২ হাজার কিলোমিটার গ্ৰামীণ রাস্তা নতুন করে তৈরি করা হবে।

সড়ক নির্মাণ এবং তার সংস্কারের কাজে গতি আনতে এবং বিভিন্ন দফতরের মধ্যে সমন্বয় বাড়ানোর উদ্দেশ্যে সব সড়ক নির্মাণ প্রকল্পকে এক ছাতার তলায় আনার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এবার থেকে নতুন তৈরি হওয়া বা সংস্কার হওয়া রাস্তায় এই প্রকল্পের নামে বোর্ড বসানো হবে। যেখানে প্রকল্প তৈরির খরচ সহ বিভিন্ন খুঁটিনাটির উল্লেখ থাকবে। গতকাল রবিবার রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা বাংলা গ্রামীণ সড়ক যোজনা সহ সড়ক নির্মাণের বিভিন্ন প্রকল্পের অগ্রগতি খতিয়ে দেখতে সব জেলার জেলাশাসকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক করেন। সেখানে পুজোর আগে রাজ্যের সব সড়ক সংস্কারের কাজ সেরে ফেলার ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। দিন কয়েক আগে মুখ্যমন্ত্রী এই বিষয়ে জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, “আপাতত ১২ হাজার কিলোমিটার, পরে আরও গ্রামীণ রাস্তার সংস্কারের কাজ করা হবে।”মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেছেন, “মহাত্মা গান্ধীর ১৫১তম জন্মবার্ষিকী র কথা মাথায় রেখে আমরা ১২ হাজার কিলোমিটার গ্রামীণ রাস্তা সংস্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার আগে পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে মোট পাকা রাস্তা ছিল ৯২ হাজার ২৩ কিলোমিটার। আর তৃণমূলের শাসনকালে মাত্র ৮ বছরে ৩ লক্ষ ১৬ হাজার ৭৩০ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করা হয়েছে। অর্থাৎ এই ক’‌বছরে রাস্তা বৃদ্ধির হার দাঁড়িয়েছে ২৪২ শতাংশ। এখন পথশ্রী অভিযানের জন্য ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।”

Leave a Comment